প্রিয়াঙ্কা গান্ধী আটক

cnnbangla.tv:উত্তরপ্রদেশের সোনভদ্রা গ্রামে জমি দখলকে কেন্দ্র করে সংঘর্ষে নিহত পরিবারের সঙ্গে দেখা করতে গিয়ে আটক হলেন কংগ্রেসের সাধারণ সম্পাদক প্রিয়াঙ্কা গান্ধী। আজ শুক্রবার তাকে আটক করা হয়।

ভারতীয় সংবাদমাধ্যম এনডিটিভির খবরে বলা হয়, প্রিংয়াঙ্কার নেতৃত্বে কংগ্রেসের একটি প্রতিনিধি দল সোনভদ্রা গ্রামের উদ্দেশে রওনা হন। পথে মির্জাপুরে পুলিশ তাকে বাধা দিলে রাস্তায় বসে পড়েন তিনি। পরে তাকে আটক করে নিয়ে যান পুলিশ।

কেন তাকে বাধা দেওয়া হলো এমন প্রশ্ন তুলে প্রিয়াঙ্কা সাংবাদিকদের বলেন, ‘নির্যাতন পরিবারগুলোর সঙ্গে শুধু দেখা করতে চেয়েছিলাম। আমার ছেলের বয়সী একজন হাসপাতালে মৃত্যুর সঙ্গে লড়াই করছে। কোন আইনের ভিত্তিতে আমাকে গ্রামে ঢুকতে দেওয়া হচ্ছে না?’

প্রিয়াঙ্কা বলেন, ‘বিজেপি শাসিত এই রাজ্যে অপরাধীদের আত্মবিশ্বাস বেড়ে গিয়েছে। দিনে দুপুরে হত্যা করছে। আর এটা ঘটেই চলেছে। সোনভদ্রের ঘটনা অত্যন্ত দুঃখজনক। এ রকম নৈরাজ্য দেখেও প্রশাসন ও মুখ্যমন্ত্রী ঘুমাচ্ছেন। এটা কি রাজ্যকে অপরাধমুক্ত করার নমুনা?’

এর আগে শুক্রবার তিনি নরেন্দ্র মোদির আসন বারানসির হাসপাতালে গিয়ে আহতদের দেখে আসেন। পরে তিনি সোনভদ্র জেলার পথে রওনা দেন।

গান্ধী পরিবারের এই সন্তান বলেন, ‘আমি শান্তিপূর্ণভাবে অবস্থান নিয়েছি। এখানে লোক জড়ো হওয়া নিষিদ্ধ এমন কোনো নির্দেশনা আমাকে কেউ দেখাতে পারবে?’

এরপর যখন তাকে সরকারি গাড়িতে তুলে নেওয়া হচ্ছিল, তখন তিনি বলেন, ‘আমি জানি না, তারা আমাকে কোথায় নিয়ে যাচ্ছে। এখন যেকোনো জায়গায় যেতে আমি রাজি আছি।’

গত বুধবার উত্তরপ্রদেশের এই গ্রামে জমি বিবাদকে কেন্দ্র করে ব্যাপক সংঘর্ষ হয়। গুলিবিদ্ধ হয়ে মৃত্যুবরণ করেন ১০ জন। আহত হন অনেক‌ে। সোনভদ্রার ওই ঘটনায় আহত ব্যক্তিদের দেখতে আজ সকালে হাসপাতালে যান প্রিয়াঙ্কা। ৩৬ একর জমিকে কেন্দ্র করে গুজ্জার ও গন্ড সম্প্রদায়ের মধ্যে সংঘর্ষে ১০ জন মারা যায় এবং ২৪ জন আহত হয়। যোগী দত্ত নামের এক গ্রামপ্রধান কৃষকদের ওপর গুলি ছোড়েন। জমি দখল করতে ২০০ লোক ও ৩২ ট্রাক্টর ট্রলি আনেন তিনি। জমি দখলে বাধা পেলে আধা ঘণ্টার বেশি সময় ধরে গুলি ছোড়েন তিনি।

এ ঘটনায় ২৪ জনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। যোগী দত্ত, তাঁর ভাইসহ ৭৮ জনকে আসামি করা হয়েছে।